২৪ ঘণ্টাতেই ৯২ লাখ টাকা

ঢাকার যমুনা ফিউচার পার্কে আয়োজিত কনসার্টে গান গাইছেন অরিজিৎ সিং। ফাইল ছবি: প্রথম আলো
ঢাকার যমুনা ফিউচার পার্কে আয়োজিত কনসার্টে গান গাইছেন অরিজিৎ সিং। ফাইল ছবি: প্রথম আলো

টিকাসংকট, অক্সিজেনের স্বল্পতা, অপ্রতুল চিকিৎসা ব্যবস্থাসহ নানা সংকটে আছে ভারত। দেশটির প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাসপাতালের অবস্থা আরও ভয়াবহ। প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই হাসপাতালগুলোর জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে অনলাইনে কনসার্ট আয়োজনের উদ্যোগ নেন অরিজিৎ সিং। সেই কনসার্ট থেকে সোমবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত তহবিলে জমা পড়েছে ৯১ লাখ ৬৩ হাজার ১৫৮ টাকা।https://www.facebook.com/plugins/post.php?href=https%3A%2F%2Fwww.facebook.com%2FArijitSingh%2Fposts%2F332344308249815&show_text=true&width=500

গ্রামীণ হাসপাতালের অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি অক্সিজেন ও পর্যাপ্ত শয্যার ব্যবস্থা, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র এবং যারা করোনায় স্বজন হারানো, তাদের পরিবারের আর্থিক সাহায্যের জন্য প্রচুর অর্থের প্রয়োজন।

অরিজিৎ তাই সব ভক্ত-অনুরাগীর কাছে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী সাহায্য প্রার্থনা করেন। দাতব্য প্রতিষ্ঠান গিভ ইন্ডিয়ার সহযোগিতায় গতকাল রোববার রাত আটটায় অরিজিৎ সিং ফেসবুকে অনলাইন কনসার্টে অংশ নেন। গিভ ইন্ডিয়ার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, অনলাইন কনসার্ট থেকে আজ সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত জমা পড়েছে ৯১ লাখ ৬৩ হাজার ১৫৮ টাকা।

অরিজিৎ সিং
অরিজিৎ সিং

অরিজিৎ সিং তাঁর জন্মস্থান মুর্শিদাবাদ জেলার স্বাস্থ্য দপ্তরকে পাঁচটি হাই ফ্লো নাজাল অক্সিজেন থেরাপি মেশিন কিনে দিয়েছেন। নিজ গ্রামের মানুষের জন্য আরও কিছু করার তাগিদ থেকেও অনলাইন কনসার্টে অংশ নেন জনপ্রিয় এই গায়ক। প্রায় দুই ঘণ্টার এই কনসার্ট এখন পর্যন্ত ফেসবুকে দেখেছেন ১৬ লাখের বেশি দর্শক। এর মধ্যে ৩ হাজার ৪৯৭ জন অরিজিতের আহ্বানে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

অরিজিৎ সিংয়ের কনসার্ট থেকে প্রাপ্ত অর্থ ভারতের গ্রামীণ হাসপাতালগুলোর জন্য এমআরআই, সিটি স্ক্যানের মতো ব্যয়বহুল মেশিন কেনার কাজে ব্যয় করা হবে।
অরিজিৎ সম্প্রতি তাঁর মা অদিতি সিংকে হারিয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁর মা। করোনা থেকে সেরে উঠলেও করোনা-পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় ১৯ মে রাতে মারা যান তিনি। মাকে হারানোর যন্ত্রণা বুকে নিয়েই নিজ গ্রামের মানুষের পাশে দাঁড়ান অসংখ্য জনপ্রিয় গানের এই শিল্পী।

অরিজিৎ সিং
অরিজিৎ সিং

অরিজিৎ আগেই জানিয়েছিলেন যে কনসার্ট থেকে উঠে আসা পুরো অর্থই গ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়ন খাতে ব্যয় করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *